1. nagorikit@gmail.com : admin :
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : admin1 :
আজ- বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩৮ অপরাহ্ন

আামেরিকার নির্বাচন : আকস্মিক ফলাফলের পরিবর্তন !

  • আপডেট করা হয়েছে বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৭২৯ বার পড়া হয়েছে

প্রিয়তোষ দে, নিউইয়াক থেকে : রাত তিনটার পরে রিপাবলিকান শিবির যখন জয়ের আনন্দে উল্লসিত হয়ে ঘুমোতে যায় তখনো তারা বুঝতে পারেনি ঘুম থেকে উঠে কি দেখতে পাবে । ভোটের ফলাফল কিভাবে উল্টে যেতে পাওে ?
ফ্লোরিডাতে জয়, নর্থ কারোলিনা ও জর্জিয়াতে বিপুল ভোটে এগিয়ে থাকা, এমনকি উইসকনসিন, মিশিগান ও পেনসিলভেনিয়ার মত সুইং স্টেট গুলোতে বিপুল ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে থাকা রিপাবলিকান দল, কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ম্যাজিকের মতো, শুধুমাত্র মেইল ইন ব্যালট ভোটের কারণে পিছিয়ে যেতে পাওে কেউ কল্পনাও করতে পারেনি।
আশ্চর্যের বিষয় হলো শুধুমাত্র রিপাবলিকানদের এগিয়ে থাকা স্টেট গুলোতে, এই মেইল ইন ব্যালট ভোটকেবলমাত্র ডেমোক্রেটিক ভর্তি নিয়ে আসলো, পেনসিলভেনিয়ার এর মত অনেক স্টেটে একশত হাজারেরও অধিক বোর্ডের মধ্যে একটাও রিপাবলিকান ট্রাম্পের পক্ষে পড়েনি এমন খবর পাওয়া গিয়েছে। আর এ ধরনের খবর সুতো রিপাবলিকানদের নয় ডেমোক্রেটদেও কে ও বিস্মিত করেছে।
সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্তসেই মেইল ভোটের গণনার মধ্য দিয়ে একে একে বিপুল ভোটে আগিয়ে থাকা রিপাবলিকানদের সব স্টেট এ ধ্বস নামল। মেল ভোটে রিপাবলিকানদের এত কম শতাংশ ভোট থাকার কারণ কি এমনকি শত হাজার ভোটে একটিও রিপাবলিকানদের না থাকার কারণটা কি ?
এরূপ জল্পনা-কল্পনার মধ্য দিয়েই উইসকনসিন মিশিগান স্টেট গুলোতে রিপাবলিকানরা হেওে গেল। রিপাবলিকানদের অ্যারিজোনা স্টেটে ও রিপাবলিকানরা হেওে গেল আগেই খবর এসেছিল।
চমকপ্রদ আশ্চর্যের বিষয় হল শুধুমাত্র রিপাবলিকান আগে থাকা সুইং স্টেট গুলোতেই মেইল ভোটের কারণে ভোট গণনায় দেরি হচ্ছে এবং একচেটিয়া ডেমোক্রেটদেও ভোট পড়েছে। যা জনগণের মনে ভোট কারচুপির যথেষ্ট সন্দিহান এর সৃষ্টি করেছে। এমতাবস্থায় রিপাবলিকানদেও জেতার কোনো সম্ভাবনাই দেখা দিচ্ছিল না।
ট্রাম্প ভোটের আগে যে সকল কারচুপির সম্ভাবনার কথা চিন্তা করেছিলেন বাস্তবে ঠিকএকইভাবে একই চিত্র দেখা দিচ্ছিল। এমতাবস্থায় ট্রাম্প উইসকনসিন মিশিগান পেনসিলভেনিয়া জর্জিয়া সহ এসকল স্টেটে লসুট করেছেন বলে খবর পাওয়া গিয়েছে।
তবে ইউএস সিনেটে রিপাবলিকানদের একটি সিনেট হারলেও বায়ান্ন টি আসন নিয়ে মেজরিটি বর্তমান থাকবে। অপরদিকে হাউসে রিপাবলিকানরা আরো অধিক সংখ্যক সিট পেয়ে থাকলেও ডেমোক্রেট মেজরিটি থাকবে বলে আশা করা যাচ্ছে। এ পর্যন্ত খবর অনুযায়ী সিনেটে রিপাবলিকান ৪৮ ও ডেমোক্রেট ৪৬ আর হাউসে ডেমোক্রেট ২০৪ ও রিপাবলিকান ১৯০ ফলাফল পাওয়া গিয়েছে।
প্রেসিডেন্ট রেস জিততে ২৭০ টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট প্রয়োজন। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী বাইডেন ২৬৪ এবং ট্রাম্প আগের সেই ২১৪ তেই স্থির রয়েছে।
কোর্টের কাছ থেকে কোনরকম সহানুভূতি বা সহযোগিতা না পেলে বাইডেনকে জয়ী ঘোষণা করা হবে।
তবে ট্রাম্প সহজেই এর পিছু ছাড়বে না বলে আমেরিকার জনগণ মনে করছেন।
স্মরণকালের সবচেয়ে ব্যতিক্রমধর্মী এই ২০০২ এর নির্বাচন আমেরিকার জনগণ এ যে সন্দেহের সৃষ্টি করেছে, যে ভোট জালিয়াতি বা কারচুপির কথা সন্দেহ করছে তা যদি সত্য হয়ে থাকে তাহলে আমেরিকা আর তৃতীয় বিশ্বের মধ্যে কোনো পার্থক্য থাকলোনা বলে সবাই বিচার করছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)