1. nagorikit@gmail.com : admin :
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : admin1 :
আজ- শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১২:২২ পূর্বাহ্ন

হরিপুরে দিওল্ড কুষ্টিয়া হাই স্কুল নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়!

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ২৫ মে, ২০২২
  • ১৬৬ বার পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন ৫১.৮০ বর্গ কি.মি. (২০.০০ বর্গমাইল) এলাকা জুড়ে সকল শ্রেণী পেশার প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক বাসিন্দাদের নিয়ে গড়ে উঠেছে, নদী বিধৌত শান্তিপ্রিয় ইতিহাস, ঐতিহ্য সমৃদ্ধ একটা জনপদ। কুষ্টিয়া সাংস্কৃতিক রাজধানী হলে হাটশ হরিপুর গ্রামটা সেই রাজধানীর অন্যতম ভূমিকায় রয়েছে। ১৯০৫ইং সালে প্রতিষ্ঠিত হরিপুরের ঐতিহ্যবাহী দি ওল্ড কুষ্টিয়া হাইস্কুল সূচনা লগ্ন থেকেই এই অঞ্চলে শিক্ষাব্যবস্থায় অসামান্য অবদান রেখে চলেছে।

চিকিৎসক , প্রকৌশলী, আইনজীবী, ব্যবসায়ী, দেশ বরেণ্যে একুশে পদক প্রাপ্ত কবি, নামি দামি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিচরণ করা মেধাবীদের মাধ্যমিক শিক্ষার হাতেখড়ি এই গৌরবোজ্জ্বল প্রতিষ্ঠানটিতে। ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠে শিক্ষার মান উন্নয়নে শান্তি, শৃঙ্খলা, সামগ্রিক উন্নয়নে অভিভাবক পরিষদের সম্মিলিত অংশগ্রহণে আগামী ০৯-০৬-২০২২ইং বৃহস্পতিবার সকাল ১০ঘটিকা হতে বিকাল ৪ঘটিকা পর্যন্ত দিওল্ড কুষ্টিয়া হাই স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। জেলা নির্বাচন কমিশন ভোট সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল আনুষ্ঠানিকতা চলমান রয়েছে।

দি ওল্ড কুষ্টিয়া হাই স্কুল ম্যানেজিং কমিটিতে প্রায় অর্ধ ডজন অভিভাবক নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। তারই লক্ষ্যে ২টি প্যানেল ভুক্ত পরিচালনা পরিষদ কমিটির আত্নপ্রকাশ ঘটেছে।
নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা যারা করবেনঃ
মোঃ আব্দুল কুদ্দুস, মোঃ আশরাফুল আলম আশরাফ, মোঃ খাইরুল ইসলাম মুকুল, মোঃ ছলিম মোল্লা, নারী সদস্য মোছাঃ ছালেহা বেগম।

অপর প্যানেলঃ
মোঃ আব্দুর রাজাক, মোঃ রাজা মল্লিক,
মোঃ মুকুল বিশ্বাস, মোঃ সেলিম উদ্দিন বিশ্বাস,নারী সদস্য মোছাঃ রুনা লাইলা।

প্যানেল হওয়ার পর থেকে নানা আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সাধারণ মানুষদের মাঝে নানা আলোচনা সমালোচনার তালিকায় রয়েছে শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকা , দন্ডপ্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ী, জোটভুক্ত হওয়া সহ নানা বিষয় উঠে এসেছে। তবে ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ কাদের নেতৃত্বে শিক্ষার পরিবেশ আরো বেগবান হবে এমন সিদ্ধান্ত সাধারণ মানুষদের ভোটাধিকারের মাধ্যমে চূড়ান্ত হবে এমনটাই আশাবাদী।

বিগত দিনের চেয়ে এই দফার নির্বাচন সবচেয়ে বেশি আলোচিত সমালোচিত হয়েছে। কেউ কেউ মনে করেন এই বারের নির্বাচন প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক হলেও রাজনৈতিক প্রভাব, আধিপত্য বিস্তারের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে। সুশীল সমাজ ও সাধারণ মানুষদের দাবী ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি যেনো কোন রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তারের হাতিয়ার না হয়ে শিক্ষার মান উন্নয়নে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে এছাড়াও শিক্ষা বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হবে, ছাত্র ছাত্রীদের আধুনিক শিক্ষায় সুশিক্ষিত হয়ে দেশ তথা রাষ্ট্রের কল্যাণ বয়ে আনবে।

যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তিরা গুরত্বপূর্ণ দায়িত্বভার গ্রহণ করবে সকল আলোচনা সমালোচনার উর্ধ্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিবেদিত প্রাণ হবে এমন ব্যক্তিই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পাবে এবং যেকোনো পরিস্থিতিতে স্কুলের উন্নয়নে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)